জলবায়ু পরিবর্তনঃ ছড়িয়ে পড়তে পারে হাজার বছরের পুরনো ভাইরাস

যাপিত জীবন জুআয়রা হোসেন || 1 February 2018

প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে পৃথিবীর জলবায়ু। উষ্ণতা বাড়ছে, বরফ গলছে, বাড়ছে সমুদ্রের স্তর। পরিবর্তিত এই জলবায়ু প্রতিনিয়তই নিয়ে আসছে নতুন কিছু হুমকি।


একটা সময় ছিল যখন বিভিন্ন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মানুষ মারা যেত। এখন সেই দৃশ্য অনেকটাই বিরল। কেমন হবে যদি হাজার বছরের এই সুপ্ত ভাইরাসগুলো নতুন করে আবার জেগে উঠে? অথবা এমন কিছু ভাইরাস যা সম্পর্কে আমাদের ধারণাই নেই? জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এমন সম্ভাবনা রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত বছর রাশিয়ার উত্তরাংশে ১২ বছরের এক বালকের মৃত্যু হয় অ্যানথ্র্যাক্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। প্রায় ১২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রায় ৭৫ বছর আগে একটা বল্গা হরিণ মারা গিয়েছিল অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত হয়ে। এর হিমায়িত মৃতদেহ হিমায়িত মাটির একটি স্তরের নিচে আটকা পরে। একে পারমাফ্রস্ট বলা হয়। এটি ২০১৬ এর গ্রীষ্ম পর্যন্ত সেখানে আটকে ছিল। উষ্ণতা বাড়ার কারণে পারমাফ্রস্ট গলতে শুরু করে এবং হরিণের মৃতদেহ উদ্ভুত সংক্রামক আশেপাশের মাটি, পানি এবং খাদ্য সরবরাহে ছড়িয়ে পড়ে। এর ফলে ২০০০ এর বেশি বল্গা হরিণ অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত হয় এবং মারা যায়। তবে ভয়ের ব্যাপার হচ্ছে এটা একটা পৃথক ঘটনা হবেনা।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এই পারমাফ্রস্ট গলতে শুরু হয়েছে। যার ফলে প্রাচীন এই ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়াগুলো বেরিয়ে আসছে। হিমায়িত পারমাফ্রস্ট মৃত্তিকা ব্যাকটেরিয়ার দীর্ঘসময় থাকার জন্য উপযুক্ত জায়গা। তারা এখানে বছরের পর বছর বেঁচে থাকে। কারণ সেখানে ঠান্ডা আছে, নেই কোন আলো বা অক্সিজেন। পৃথিবীতে উষ্ণতা বাড়ছে। যার ফলে দিন দিন আরো পারমাফ্রস্ট গলবে এবং এটি হয়ত নানা রোগের একটা বাক্সকে খুলে দিবে। প্রতি বছরই গ্রীষ্মে প্রায় ৫০ সেঃ মিঃ পারমাফ্রস্ট গলে যায়। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সাধারণ মাত্রার থেকে বেশি পারমাফ্রস্ট গলতে শুরু করেছে। তবে পারমাফ্রস্টে আটকে থাকা সব ব্যাকটেরিয়া নতুনভাবে জীবিত হতে পারেনা।

বিজ্ঞানীরা ১৯১৮ সালে স্প্যানিশ ফ্লু ভাইরাসের অংশ খুঁজে পেয়েছেন আলাস্কার তুন্দ্রার একটি গণকবর থেকে। ধারণা করা হয় প্লেগ এবং বসন্তের ভাইরাসও সাইবেরিয়াতে সমাহিত আছে। ১৯৮০ এর দিকে সাইবেরিয়াতে বসন্ত মহামারি আকার ধারণ করেছিল এবং এতে প্রচুর মানুষের প্রাণহানি হয়। একটা শহরের প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষ এতে মারা যায়। পারমাফ্রস্ট গলতে শুরু করায় হয়ত ১৮ এবং ১৯ শতকের মহামারি রোগগুলো ফিরে আসতে পারে।

২০০৫ সালে নাসার এক গবেষণাতে আলাস্কায় একটি ব্যাকটেরিয়া আবিষ্কৃত হয় যেটা ৩২,০০০ বছর ধরে হিমায়িত ছিল। তার দুই বছর পর আরো একটা ব্যাকটেরিয়া আবিষ্কার করা হয়। যা এন্টার্কটিকা হিমবাহে প্রায় ৮ মিলিয়ন বছর ধরে সুপ্ত ছিল। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসগুলো হয়ত হতে পারে কোন বিপর্যয়ের কারণ। যার ব্যাপক প্রভাব পরতে পারে মানবজীবনে।

পারমাফ্রস্ট গলে আটকে থাকা ভাইরাস বেরিয়ে আসবে এবং পানিতে মিশবে। সুতরাং, ভাইরাস ছড়াবে পানির মাধ্যমে। যা হয়ত বিশ্বব্যাপী একটা সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে। বাংলাদেশে পরিবেশ অধিদপ্তর নিরাপদ পরিবেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এই অধিদপ্তর গ্লোবাল ওয়ার্মিং, জনসাধারণকে বৃক্ষরোপণে উদ্বুদ্ধ করা, সুন্দরবন রক্ষার্থে অনেক কাজ করেছে। এছাড়াও পরিবেশ দূষণমুক্ত রাখার জন্য কালো ধোঁয়া ছড়ায় এমন গাড়ির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। যেহেতু এই অধিদপ্তর পরিবেশ দূষণের বিরুদ্ধে কাজ করে, সেহেতু এই ভাইরাস ছড়ানোর ব্যাপারেও এই অধিদপ্তর থেকে হয়ত অনেক উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে। যাতে এর কারণে পরিবেশ, মানুষ বা কোন পশুপাখির ক্ষতি না হয়।

Deadly viruses to release soon due to climate change

Lifestyle Zuaira Hossain on 1 February 2018

The climate is changing. The earth is becoming warmer, ice melting and due to that, the level of the ocean is rising. This climate change is bringing some new threats for mankind.


There was a time when thousands of people would die due to virus attacks. What will happen if these hidden viruses return and even stronger than before? Even there could be some bacteria we never met before. There is a possibility of these bacteria rising again.

Last year a 12 year old boy died after being affected by Anthrax and another 12 were being hospitalized.

75 years ago a reindeer died after being affected by anthrax. Its frozen carcass became trapped under a layer of frozen soil and it’s known as permafrost. It stayed there until summer 2016. The permafrost starts melting for a heat wave. The reindeer corpse had been exposed which released infectious anthrax into nearby water and soil, and then into the food supply. More than 2000 reindeer got affected by the virus and died. This will not be an isolated case.

The world is becoming warmer day by day. The permafrost started melting and for this the hidden bacteria and viruses are waking up again. Frozen permafrost are perfect place for bacteria to stay longer as it is cold, dark and there is no oxygen. Melting ice may open a box full of diseases. Every year 50cm permafrost melts in summer. Global warming is exposing older permafrost layers. Not all types of hidden bacteria can awake again from permafrost.

Scientists found fragments of RNA of a 1918 Spanish flu from the mass graves in Alaska’s Tundra. Smallpox and Plague might be buried in Siberia. In 1980s many people died due to smallpox in Siberia. On town lost 40% of its population. The deadly diseases from 18 and 19 century might come back as the permafrost is melting.

NASA discovered a bacteria frozen for 32,000 years in Alaska. After two years another bacteria was found which was hidden in Antarctica for 8 million years. The deadly viruses which are due returning for climate change might cause something worse and that might put an effect on mankind.

The viruses are hidden inside the permafrost. As the permafrost is melting the virus will be released and will be spreading through water. Thus it might be a problem world wide. In Bangladesh, Department of Environment is working on ensuring safe environment. The unit has already worked on a lot of environmental changes like Global Warming, educate mass regarding replanting trees in deserted lands, preserving the mangrove and etc. They have also contributed to environmental pollution by banning vehicles that emits black smoke. As they are the unit to shout out at any factors affecting the environment, it is believed that that can also do loads for prevention and cure of these long lost virus poised to come back stronger than before. Not sure exactly how, but the department should start taking necessary steps so that any disaster caused by the climate change can be prevented from harming people or animal.