মানবদেহে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধকতা

আপনার স্বাস্থ্য দীপান্বিতা সূত্রধর || 6 February 2018

অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ ব্যবহারের ফলে ব্যাকটেরিয়াগুলো তাদের ঐ ওষুধের বিপক্ষে তাদের প্রতিক্রিয়া পরিবর্তন করে ফেলে ফলে মানবদেহে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধ ঘটে।


গত দুই দশকে বাংলাদেশে ওষুধ উৎপাদন আগের থেকে অনেক বেড়েছে কিন্তু মানুষের কাছে প্রয়োজনীয় ওষুধের সহজলভ্যতা হয়ত এখনো আশানুরূপ নয়। বাংলাদেশে অনেক ক্ষেত্রেই প্রাথমিক চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিক বা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল দেয়া হয়। কিন্তু অ্যান্টিবায়োটিক বা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল যদি কোন মানুষের শরীরে প্রতিরোধী হয়ে যায় পরবর্তীতে ঐ মানুষের বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর আমাদের দেশের মানুষ এই ব্যাপারটি নিয়ে মোটেই সচেতন নয়।  
স্বাস্থ্য ব্যবস্থার অন্নুনত অবকাঠামো, নির্দিষ্ট সময়কালে অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ না করা, গৃহপালিত পশু ও মাছের ফার্মে অপ্রয়োজনীয় অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার, ফার্মেসীগুলোতে ওষুধ বিক্রেতাদের অসৎ উদ্দেশ্য- এসব অনেক কারণেই বাংলাদেশে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধকতা বেড়ে চলেছে। 
বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস সহ বিভিন্ন ধরনের মাইক্রো অর্গানিসম বা জীবাণুর কারণে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয় মানুষ। ডাইরিয়া, যক্ষ্মা, নিউমোনিয়া, গনোরিয়া সহ অনেক রোগ আছে যেগুলোর চিকিৎসা অ্যান্টিবায়োটিক করা সম্ভবই না। অ্যান্টিবায়োটিকগুলি জীবাণু সংক্রমণ প্রতিরোধ ও এইসব রোগের চিকিত্সা করার জন্য ব্যবহৃত হয়। অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ ব্যবহারের ফলে ব্যাকটেরিয়াগুলো তাদের ঐ ওষুধের বিপক্ষে তাদের প্রতিক্রিয়া পরিবর্তন করে ফেলে ফলে মানবদেহে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধ ঘটে। আমাদের শরীরে কিছু প্রয়োজনীয় ব্যাকটেরিয়া থাকে যেগুলো ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া থেকে আমাদের রক্ষা করে। কিন্তু অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ খাওয়ার ফলে প্রয়োজনীয় ব্যাকটেরিয়া নষ্ট হয়ে যায়। ফলে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। 
বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষের অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধ নিয়ে বিশেষ করে এর ক্ষতিকারক দিক নিয়ে মানুষের ধারণা খুবই কম। আমাদের দেশে অনেক সময় খুব ছোটখাটো অসুখের জন্য শুধু মাত্র তাড়াতাড়ি যাতে ব্যাথা বা অসুখ সেরে যায় এইজন্য অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ দিয়ে থাকে ডাক্তাররা। কিন্তু ওষুধ খাওয়ার সময়কাল নিয়ে উদাসীনতার কারণে অনেকেই কিছুটা সুস্থবোধ করলে ওষুধ খাওয়া ছেড়ে দেয়; যা শরীরকে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধ করে ফেলে। আমাদের দেশে অনেক সময় ফার্মেসীতে ওষুধ বিক্রেতারা না বুঝেই অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে দেয় রোগীদের। তারা নিজেরাও অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধের প্রতিরোধকতা নিয়ে ঠিক করে জানে না। অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধগুলো যদি এইভাবে আমাদের শরীরে প্রতিরোধী হয়ে যায় তাহলে কিছুদিন পর ব্যাকটেরিয়া দিয়ে আক্রান্ত হলে চিকিৎসা করা দুর্লভ হয়ে যাবে। এর ফলে মানুষের স্বাস্থ্যের অবক্ষয় ঘটবে, রেমেটিক আরথ্রাইটিসের মত জটিল রোগে আক্রান্ত হবে মানুষ। এছাড়াও অসুখ সারতে দেরি হলে মানুষের চিকিৎসা খাতে খরচ অনেক বেড়ে যাবে। 
এক গবেষণা থেকে দেখা গেছে যে, সিউডোমনাস আরগিনসা নামক ব্যাকটেরিয়া কান, গলা বা কাঁটাছেড়ায় ইনফেকশন বা ব্যাকটেরিয়া দিয়ে সংক্রমণজনিত যে সমস্যা হয় তার জন্য দায়ী। আর বহুল ব্যবহৃত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ সিপ্রোফ্লক্সাসিন, জেন্টামাইসিন, সেফিক্সিম, অ্যাজিথ্রোমাইসিন শতকরা ৫০ ভাগ সময়ই এই ব্যাকটেরিয়াটির বিরুদ্ধে কাজ করে না। অন্য আরেকটি মেডিক্যাল কলেজের গবেষণা থেকে দেখা গেছে যে মাত্র ৭৩.১% মানুষকে প্রয়োজনের বাইরে অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ দেয়া হয়। 
মোদ্দাকথা, মানবদেহে ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধীকতা যদি সময় থাকতে না ঠিক করা হয় তাহলে মানুষের স্বাস্থ্য বিষয়ক সমস্যা দিনে দিনে বাড়তে থাকবে। অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধের অপব্যবহার প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশে একটি বড় সমস্যা। বাংলাদেশ সরকারের বিশেষ করে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর (বাংলাদেশ ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন) এর উচিত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিতরণ এবং বিক্রয়ের উপরে কিছু আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা যাতে অবৈধভাবে এবং অনুমতি ছাড়া সহজেই কেউ যাতে অ্যান্টিবায়োটিক ক্রয়-বিক্রয় না করতে পারে। কেননা অনিয়ন্ত্রিত বিতরণ এবং অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধের ব্যবহার মানবদেহে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধীকতা গড়ে তোলে। ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া ছাড়াও ডাক্তাররা এই সমস্যা সমাধানে সাহায্য করতে পারে। 

Antibiotics resistance: Bangladesh experience

Health Dipanwita Sutradhar on 6 February 2018

Due to the use of excessive antibiotic medicines, bacteria change their response to those drugs. Consequently, antibiotics become resistive in the human body.


In the last two decades, the production of medicines in Bangladesh has increased much but the availability of essential medicines to humans may not be adequate yet. Antibiotic or antimicrobial is given for the treatment of infectious diseases in Bangladesh. Nonetheless, if antibiotics or antimicrobials become resistant to the human body then there will be various problems. Unfortunately, most of the people of our country are not really aware of this issue.

Antibiotic resistance is increasing in Bangladesh for many reasons such as the unstructured health system, having antibiotics for the given specific time period, use of unnecessary antibiotics in livestock and fisheries, and the immoral intentions of drug dealers in pharmacies.

In developing country like Bangladesh, people get sick in various diseases due to various types of microorganisms or microbes, including bacteria, fungus and so on. There are many diseases, including diarrhea, tuberculosis, pneumonia, and gonorrhea which cannot be treated with antibiotics. Antibiotics are used to prevent and treat bacterial infections. Due to the use of excessive antibiotic medicines, bacteria change their response to those drugs. Consequently, antibiotics become resistive in the human body. Our body has some useful bacteria that protect us from harmful bacteria. But due to the superfluous antibiotic medicines, the good bacteria get damaged. As a result, the immune system declines.

In our country, the people who sell medicine in pharmacies do not give the antibiotic with a proper prescription. They do not know exactly about the antibiotic resistance. If antibiotic medicines are resistant to our body then treatment will be threatened for bacterial infection. This will result in the deterioration of human health, people will agonize with complex diseases such as parametric arthritis.

One study has found that the bacteria- Pseudomonas aeruginosa is responsible for the infection of the ears, throat, and urine infections. And 50 percent of the most commonly used antibiotics do not work against bacteria in ciprofloxacin, gentamycin, cefuroxime, and azithromycin. Another medical college study found that only 73.1% of the people were given antibiotics beyond the requirement.

Antibiotic drug abuse is actually a big problem in Bangladesh. The Bangladesh government, especially Bangladesh Drug Administration should make some laws and implement them for distributing antibiotic medicine appropriately so that someone cannot buy and sell antibiotics easily without permission. Because of uncontrolled distribution and the misuse of antibiotic medicines creates antibacterial resistance to the human. In addition to electronic and print media, doctors can help solve this problem.