রাজশাহীর দর্শনীয় স্থান

ভ্রমণ বিবরণ জুআয়রা হোসেন || 11 March 2018

রাজশাহী বিভাগের অধীনে অন্যতম সুন্দর একটি শহর রাজশাহী। দেশের উত্তরাঞ্চলের এই শহরে রয়েছে ঘুরে দেখার অসাধারণ সব জায়গা।


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ঃ রাজশাহী ঘুরতে গেলে প্রথমেই যেই জায়গাটির নাম আসবে সেটা হচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয়। প্রকৃতির কাছে কিছু সময় কাটাতে অন্যতম জায়গা এটি। পিচঢালা রাস্তা, দুই ধারে গাছের সাড়ি আর সেইসাথে নির্মল বাতাস। এগুলো উপভোগ করতে হলে যেতে হবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোড। তবে প্রধান ফটক দিয়ে ঢোকার সময়ই ভেতরের সৌন্দর্য অনেকটাই আঁচ করা যাবে। কাজলা গেট থেকে শের-ই-বাংলা হল পর্যন্ত বিস্তৃত প্যারিস রোড যেকারো মন কাড়বে। শুধু প্যারিস রোড নয়, পুরো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসই অনেক সুন্দর। তাছাড়া রয়েছে স্বাধীনতা যুদ্ধের স্মরণে নির্মিত ভাস্কর্য সাবাস বাংলাদেশ। তাই রাজশাহী গেলে সবারই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে আসা উচিত।

পুঠিয়া রাজবাড়িঃ পুঠিয়া রাজশাহী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। নজরকাড়া স্থাপত্যের জন্য এই রাজবাড়ি বেশ পরিচিত। এটি বাংলাদেশে বিদ্যমান রাজবাড়িগুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রাচীন স্থাপত্যগুলো বেশ নজরকাড়া। এটি ছিল মহারানী হেমন্ত কুমারী দেবীর বাসবভবন। ভবনের সামনে ও ভেতরে রয়েছে লতাপাতা, ফুল ইত্যাদি অলংকরণ।

রাজবাড়িটি চারিদিকে পরিখা পরিবেষ্টিত। এখানে রয়েছে শ্যামসাগর নামের বিশাল এক পুকুর। রাজবাড়ি ও আশেপাশে বেশ কয়েকটি মন্দির রয়েছে। পুঠিয়া রাজবাড়ি পাঁচআনি রাজবাড়ি নামেও পরিচিত। আয়তাকার পরিকল্পনায় নির্মিত দ্বিতল বাড়িটি নজরকাড়ার মত।

বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরঃ রাজশাহীর প্রত্নতাত্ত্বিক অঞ্চল সম্পর্কে অনেকটাই জানা যাবে এই জাদুঘর ঘুরলে। এটি বাংলাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ জাদুঘর। শরৎকুমার রায়, তাঁর সহযোগী অক্ষয় কুমার মৈত্রয়, রমাপ্রসাদ চন্দ্র প্রমূখ প্রত্নস্থল আবিষ্কারের লক্ষ্যে ১৯১০ সালে পালপাড়া, মালঞ্চ, মান্দাইল, কুমারপুর, জগপুর ইত্যাদি বেশ কিছু জায়গা পরিদর্শন করেন এবং সেসব জায়গা থেকে প্রায় ৩২ টি ভাস্কর্য সংগ্রহ করতে সক্ষম হন। পরবর্তীতে সেগুলো সংরক্ষণের জন্য বরেন্দ্র জাদুঘর গড়ে উঠে।

বরেন্দ্র জাদুঘরে রয়েছে ভাস্কর্য, খোদিত লিপি, মুদ্রা, পান্ডুলিপি, আরবি ফলক, প্রাচীন চিত্রকলা, বই-পুস্তক ইত্যাদি অনেক প্রাচীন নিদর্শন।

টি বাঁধঃ রাজশাহী শহরে পদ্মার তীরে ইংরেজি অক্ষর টি আকৃতির বাঁধ। বাঁধটি প্রাকৃতিক ভাবেই নির্মিত। এটি এখন এখানের অন্যতম ঘুরে বেড়ানোর জায়গা। সেখান থেকে নৌকা করে ঘুরে বেড়ানো যাবে পদ্মায়। বাঁধের পাশে রয়েছে একটি বাগান যেটি রাজশাহী পুলিশ লাইন্সের তত্ত্বাবধায়নে গড়ে তোলা হয়েছে। প্রতিদিন শত শত লোক এখানে ঘুরতে আসেন।

হযরত শাহ মখদুম (রহঃ) এর মাজারঃ রাজশাহী অনেক পীর সাধকদের পূণ্যস্থান। এ অঞ্চলের দরবেশ পুরুষ শাহ মখদুম (রহঃ) এর সমাধি রয়েছে এখানে। রাজশাহী সরকারি কলেজের কাছে দরগাপাড়ায় অবস্থিত সামাধিটি। ইসলাম প্রচারের উদ্দেশ্যে তিনি ১২৮৭ সালে তিনি বাগদাদ থেকে এই অঞ্চলে আসেন। তাঁর সমাধিটি একটি গোলাকার কক্ষ্যের স্থাপত্য এবং এর উপর একটি বৃহদাকার গম্বুজ আছে।

এছাড়াও রাজশাহীতে ঘুরে দেখার মত আরো অনেক জায়গা রয়েছে। এসব জায়গা ঘুরে দেখতে হলে প্রথমেই যেতে হবে রাজশাহী। বাসে, ট্রেনে কিংবা প্লেনে করে রাজশাহী যাওয়া যায়। আর অনলাইন টিকেট কাটার জন্য রয়েছে সহজ, বিডি টিকেটস ইত্যাদি। আর থাকার জন্য রাজশাহীতেই রয়েছে বেশ ভাল মানের হোটেল।

Places to visit in Rajshahi

Travel Zuaira Hossain on 11 March 2018

Rajshahi is a beautiful city of Rajshahi division. It is located in the north part of the country. There are many places to visit in this city.


Rajshahi University: Rajshahi University is the second large university of Bangladesh. This is also considered as one of the beautiful places of Rajshahi. If one loves to enjoy some time with nature Rajshahi University would be perfect destination for them. One of the famous places of this university is the Paris road. This road is very mesmerizing with greenery both side. The beauty of the road can be easily spotted from the main gate. Paris road starts from the Kajla gate which ends at Sher-e-Bangla hall. Not just Paris Road, the entire university campus is very beautiful. Besides, there is a sculpture made in memory of the war of liberation. People who go to visit Rajshahi should visit this beautiful campus.
Puthia Rajbari: Puthia is an upazila of Rajshahi. It is very famous for its amazing architecture. This palace is considered as one of the ancient and popular palace of the country. It was the house of Queen Hemanta Kumari Devi.
There is a large pond called Shamshagor. There are several temples in Rajbari and surrounding areas. Puthia Rajbari is also known as Panchani Rajbari. The building is the main attraction for tourists. Every year many people visits this place.
Varendra Research Museum: A lot can be known about the archaeological area of Rajshahi by visiting this museum. It is one of the best museums in Bangladesh. In 1910, Saratkumar Roy, his associate Akshay Kumar Maitreya, Ram Prashad Chandra visited many places like Palpara, Malancha, Mandail, Kumararpur, Jagpur, etc and was able to collect around 32 sculptures from those places. Later, the Varendra museum was developed to preserve them. Varendra Museum has many ancient monuments such as sculptures, inscriptions, coins, manuscripts, Arabic plaques, ancient paintings, book books etc.
T-badh: This T shaped dam is naturally built on the bank of Padma. It has now become very famous place to visit for travelers. One can enjoy boat journey on Padma from there. There is a garden beside the dam which is being developed under the supervision of Rajshahi Police Lines. Hundreds of people visit here every day.
The shrine of Hazrat Shah Makhdum (rah): Rajshahi is the sacred place for many Pirs. The Samadhi of Hazrat Shah Makhdum (rah) is located at Dargapara near Rajshahi Government College. In order to propagate Islam he came to this region from Baghdad in 1287.
There are many other places to visit in Rajshahi. To visit this places one need to visit Rajshahi first. One can travel by bus, air or train. Online tickets can be purchased through shohoz, bdtickets etc. There are many hotels in Rajshahi for night stay.