চলে গেলেন স্টিফেন হকিং

প্রযুক্তি ভাবনা দীপান্বিতা সূত্রধর || 14 March 2018

‘কালের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস’ লেখক, ইংরেজ পদার্থ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং চিরতরে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ৭৬ বছর বয়সে কেম্ব্রিজ নিজ বাস ভবনে মারা যান তিনি। স্টিফেন হকিংসের তিন সন্তান লুসি, রবার্ট ও টিম বুধবার সকালে বিবিসি নিউজকে তার মৃত্যুর ব্যাপারটা নিশ্চিত করেন।


মহাজাগতিক বিশ্ব নিয়ে যত গবেষণা তার প্রবর্তক ধরা হয় স্টিফেন হকিংকে। ‘কালের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস’ লেখক, ইংরেজ পদার্থ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং চিরতরে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ৭৬ বছর বয়সে কেম্ব্রিজ নিজ বাস ভবনে মারা যান তিনি। স্টিফেন হকিংসের তিন সন্তান লুসি, রবার্ট ও টিম বুধবার সকালে বিবিসি নিউজকে তার মৃত্যুর ব্যাপারটা নিশ্চিত করেন।

স্টিফেন হকিংকে ধরা হত চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিস্ময়। ১৯৬৩ সালে মাত্র ২১ বছর বয়সে দুরারোগ্য মোটর নিউরন রোগে আক্রান্ত স্টিফেন হকিংস কে ডাক্তারগণ সময় দিয়েছিলেন মাত্র দুই বছর। কিন্তু তিনি বেঁচে ছিলেন অর্ধ শতকেরও বেশি সময়। ১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি অক্সফোর্ডে জন্মগ্রহণ করেন স্টিফেন হকিংস। তার বাবা ছিলেন একজন জীববিজ্ঞান বিষয়ক গবেষক ছিলেন।  তার শৈশব কাটে লন্ডনের সেইন্ট আলবানসে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক করার পরে তিনি কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে যান তার স্নাতকোত্তর করতে। ১৯৬৪ সালে তার স্কুল জীবনের ভালবাসা জেইন কে বিয়ে করেন তিনি। মোটর নিউরনের কঠিন রোগটি অপ্রত্যাশিত ভাবে অনেকটা ধীর গতিতেই হকিংসের শরীরে প্রভাব ফেলে। স্টিফেন আর জেইন দম্পতির তিন সন্তানই লুসি, রবার্ট ও টিম।

যারা জীবনকে দেখার সবচেয়ে কম সময় পায়, তারাই জীবনকে উপলব্ধি করে অনেক গভীরভাবে। স্টিফেন হকিং এর জীবন থেকে তা বোঝা যায়। ২০১৩ সালে প্রকাশিত তার আত্মজীবনী ‘মাই ব্রিফ হিস্ট্রি’ তে তিনি বলেন জীবনে বড় কিছু করতে হলে হয় তোমাকে চেষ্টা ছাড়াই বুদ্ধিমান হতে হবে অথবা নিজের চিন্তার সীমাবদ্ধতা গ্রহণ করে নিতে হবে। ১৯৬০ সাল থেকেই তাকে ক্লাচ ব্যবহার করতে হত। স্টিফেন হকিংসের প্রথম আলোচনায় আসেন ১৯৭০ সালে যখন তিনি এবং রজার পেনরস ‘সিঙ্গুলারিটি’ তত্ত্ব প্রকাশ করেন। ১৯৭৪ সালে তিনি কোয়ান্টাম তত্ত্ব আবিষ্কার করেছিলেন যেখানে কৃষ্ণ গহ্বর এবং এর তাপীয় নিঃসরণ নিয়ে বলা হয়। ধীরে ধীরে তার শরীরের অবনতি হতে থাকে, ১৯৮৮ সালের দিকে তিনি শুধুমাত্র ভয়েস সিনথেসাইসর দিয়ে কথা বলতে পারতেন। আর ঐ সময়ে শত বাঁধা আর শারীরিক প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও তার অন্যতম কাজ ‘অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম’ বইটির কাজ শেষ করেন। বইটি ১৯৮৮ সালে প্রথম প্রকাশের পর সর্বোচ্চ সংখ্যক কপি বিক্রি হয়। সারাবিশ্বে প্রায় ৪০ টি ভিন্ন ভাষায় ১০ মিলিয়ন বই বিক্রি হয়। পরবর্তীতে টানা ২৩৭ সপ্তাহ ‘সানডে টাইমস’ এ বেস্টসেলার থাকায় গিনিস বুক অফ ওয়ার্ল্ডে স্থান করে নেয় এই ‘অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম’। বইটির সম্পাদক পিটার গুতগারযি কে কিছু কৃতজ্ঞতা দেয়া উচিত কারণ প্রথমে বইটির নাম ছিল ‘ফ্রম দ্যা বিগ ব্যাং টু ব্ল্যাক হোল: অ্যা শর্ট হিস্ট্রি অফ টাইম’; পরে একে ছোট করে ‘অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম’ আর এই শিরনামই এনে দেয় গিনিস বুক অফ ওয়ার্ল্ডে স্থান করার অন্যতম কারণ। সম্প্রতি স্টিফেন হকিং কৃষ্ণগহ্বরের কিছু তথ্য বিষয়ক সূত্র নিয়ে কাজ করছিলেন। আইনস্টাইনের আপেক্ষিকতা সূত্র অনুযায়ী কৃষ্ণ গহ্বরে যখন কোন জিনিস হারিয়ে যায় তখন তার নিজেরও একটা অস্তিত্ব থেকে যায়। গত বছরের শেষের দিকে তিনি কৃষ্ণ গহ্বরে একটি চুল সমপরিমাণ জিনিসের অস্তিত্ব আছে এবং এ সম্পর্কিত দ্বি মাত্রিক হলগ্রাফিক ইম্প্রিন্ট যা প্রমাণ করতে পারলে হয়ত নোবেল পুরস্কার পেতে পারতেন তিনি। স্টিফেন হকিং তার সারা জীবনে আলবার্ট আইনস্টাইন এ্যাওয়ার্ড, দ্যা উলফ প্রাইজ, দ্যা কপ্লে মেডেল, ফান্ডামেন্টাল ফিজিক্স পুরস্কার সহ অনেক পুরস্কারে পুরস্কৃত হন।

স্টিফেন হকিং তার মৃত্যু নিয়ে এর আগে এক সাক্ষাৎকারে বলে ছিলেন যে, আমি গত ৪৯ বছর ধরে মৃত্যুর সঙ্গে বসবাস করেছি। আমি এখন আর মৃত্যুকে ভয় পাই না, আর আমার মারা যাওয়ার কোন তাড়া নেই। আর আসল মৃত্যুর আগে অনেক কাজ আছে যা আমি করে যেতে চাই। স্টিফেন হকিং এর মৃত্যুর সাথে পদার্থবিজ্ঞান আর প্রযুক্তির ক্ষেত্রে যে ক্ষতি হল তা হয়ত অপূরণীয় রয়ে যাবে।

Eulogy: Stephen Hawking

Tech Dipanwita Sutradhar on 14 March 2018

Stephen Hawking, the writer of ‘The Brief History of Time’ and the brightest star in the space of science, has died aged 76 whose insights molded present cosmology and inspired worldwide audiences in the millions.


Stephen Hawking, the writer of ‘The Brief History of Time’ and the brightest star in the space of science, has died aged 76 whose insights molded present cosmology and inspired worldwide audiences in the millions. 
Stephen Hawking’s family gave a statement in the early hours of Wednesday morning to the BBC news and it confirmed his death at his home in Cambridge. Hawking’s children, Lucy, Robert and Tim said in a statement: “We have deeply saddened that our beloved father passed away today.” 
Stephen Hawking was considered as the miracle of medical science. In 1963, at the age of 21, he was diagnosed with motor neuron disease. Doctors thought that he might have only two years or less for the living but he lived more than half a century. But Hawking had a form of the disease that progressed more slowly than usual. He survived for more than half a century and long enough for his disability to define him. His popularity would surely have been diminished without it.
Stephen Hawking was born on 8 January 1942 in Oxford. His father was a researcher biologist. His childhood was spent in St. Albans in London. After graduating in Physics from Oxford University, he went to Cambridge University to pursue his postgraduate course. In 1964, he married his high school sweetheart, Jane Wilde. Stephen has his three children are Lucy, Robert, and Tim with Jane and he thought after being affected by physical illness; he had had the best family life. 
Those who have the shortest time to see life, they realize the life in a deep way. It is understood from the life of Stephen Hawking. In his autobiography 'My Brief History' published in 2013, he said that if you have to do something big in life, you have to be intelligent without effort or accept the limitations of your thoughts. Since 1960, he had to use a clutch. 
Hawking’s main innovation came in 1970. He and Roger Penrose applied the mathematics of black holes to the entire universe and exhibited the concept of singularity. Basically, a singularity is a region of infinite curvature in space-time, lay in our distant past: the point from which came the big bang.
In 1974 he illustrated the quantum theory to declare that black holes should emit heat and eventually pop out of existence. For normal black holes, the process is not a fast one, it taking longer than the age of the universe for a black hole the mass of the sun to evaporate.
Gradually his body deteriorated, in 1988 he could only speak through a voice synthesizer. In spite of physical obstacles at that time, he completed his book 'A Brief History of Time'. After the first publication of the book in 1988 around 10 million books are sold in 40 different languages worldwide. Additionally, the book made the Guinness Book of Records after it stayed on the Sunday Times bestsellers list for an exceptional 237 weeks. 
Stephen Hawking had been recently working on solving some infamous theories on black hole information paradox. That might be stated the information about a matter that gets destroyed by a black hole is supposed to be fundamentally preserved. In 2017 he issued a paper with a possible solution to this contradiction based on black hole ‘hairs’, making a kind of two-dimensional holographic imprint of anything that has been sucked in. He stated the existence of these hairs is demonstrable, and their presence could win him a Nobel Prize. Stephen Hawking has been rewarded with many awards, including Albert Einstein Award, The Wolf Prize, and Fundamental Physics Award throughout his life. 
Stephen Hawking said many things before his death. Once he said that he had lived with death for the last 49 years. He was no longer feared by death. He also told that before the actual death, there are many things he wanted to do. The death of Stephen Hawking in the field of physics and cosmology- will always be irreplaceable.