ডিএক্সও মার্কের রিভিউ থেকে জানা যায় কোন স্মার্ট ফোনের ক্যামেরা সবচেয়ে ভাল

প্রযুক্তি ভাবনা দীপান্বিতা সূত্রধর || 7 April 2018

ডিএক্সওমার্কের নাম শুনেছেন কখনো? কোন রিভিউ এর উপর ভিত্তি করে কেউ বুঝবে যে কোন স্মার্ট ফোনের ক্যামেরা সবচেয়ে ভাল? ডিএক্সওমার্ক বহুদিন ধরে বিভিন্ন ধরণের ক্যামেরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আসছে। ২০১২ সাল থেকে তারা স্মার্ট ফোনের ক্যামেরার জন্য ডিএক্সও মার্ক মোবাইল রেটিং সিস্টেমের শুরু করেছে।


পৃথিবীতে এই মুহূর্তে সব থেকে বেশি প্রয়োজনীয় যোগাযোগ মাধ্যম যন্ত্র মোবাইল ফোন এই বছরের ৩ এপ্রিল ৪১ বছরে পা দিলো। সময়ের সাথে সাথে অনেক পরিবর্তন এসেছে মোবাইল ফোনে। একটা সময় শুধু কথা বলা আর ক্ষুদেবার্তা এর মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল মোবাইল ফোনের ব্যবহার। কিন্তু প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে এখন মোবাইল ফোন শুধু কথা বলার মাধ্যম নেই সাথে যোগ হয়েছে আরও অনেক রকম ফিচার। বিশেষ করে অ্যান্ড্রয়েড এর মত অপারেটিং সিস্টেম আসাতে মোবাইল ফোনের ব্যবহার সাথে মানুষের চাহিদার পরিবর্তন এসেছে। এখন কম্পিউটারের প্রায় বেশির ভাগ কাজ করা যায় এই ফোনের মাধ্যমে। এটা অনেক পুরনো খবর কিন্তু নতুন করে মানুষের মাঝে যে প্রবণতা বেশি লক্ষ্য করা যায় তাহল ফোন কেনার আগে সবাই প্রসেসর সাথে ক্যামেরা কতটা ভাল তা নিয়ে অনেক সচেতন।
একটা সময় ছিল যখন আলোকচিত্র বা ছবি তোলা মানেই রিলের ক্যামেরা। কিন্তু বর্তমানে স্মার্ট ফোনগুলো দিয়ে অসম্ভব ভাল ছবি তোলা যায় আর তার জন্য সবাই ফোন কেনার আগে এই বিষয়টা অনেক খেয়াল করে। গত পাঁচ বছরে দুই লেন্স আর বিস্তৃত পরিসর নিয়ে ছবি তোলা যায় এরকম বৈশিষ্টের ফোনের সংখ্যা বেড়েছে। আর মানুষের সেলফি তোলার প্রবণতা অনেক বেশি বলে অনেক মোবাইল ফোন তৈরির প্রতিষ্ঠানগুলো সামনের ক্যামেরার রেজুলেশন আর সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয় নিয়ে অনেক সচেতন।
স্মার্ট ফোনের ক্যামেরা নিয়ে ধারণা যাদের আছে তারা সবাই জানে ডিএক্সও মার্কসের কথা। ডিএক্সও মার্কস বিভিন্ন ধরণের ক্যামেরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আসছে বহুদিন ধরে আর ২০১২ সাল থেকে তারা স্মার্ট ফোনের ক্যামেরার জন্য ডিএক্সও মার্ক মোবাইল রেটিং সিস্টেমের শুরু করেছে। বিশেষ চার্ট, ল্যাব যন্ত্রপাতি, সফটওয়্যার দিয়ে বিভিন্ন পরিবেশে ছবি তুলে এই রেটিং করা হয়। রুমের ভেতরে এবং বাইরের ভিন্ন ভিন্ন আলো, পরিবেশ এবং আবহাওয়াতে স্থির ও চলমান দুইধরনের প্রায় ১৫ হাজারের বেশি ছবি তোলা হয়। এরপর ল্যাবে এইসব ছবি বিশ্লেষণ করা হয়। আলোতে ছবির এক্সপোসার, অটো ফোকাস, বকে, রঙ এরকম কিছু বিশেষ ভ্যারিয়েবল বা পরিবর্তনীয় বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে চূড়ান্ত ফলাফল আসে। পরীক্ষার প্রক্রিয়ার জন্য প্রায় ১০ দিনের মত লাগে প্রকৌশলীদের। এই ১০ দিনে তারা ল্যাব এবং বাইরে ছবি ও ভিডিও ধারণ করে, সেই সব তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে এবং সর্বশেষ মূল্যায়ন প্রদান করে।
ডিএক্সও মার্কসের মুল্যায়ন অনুযায়ী এখন এক নম্বরে আছে হুওয়ায়ে পি৯০ প্রো। হুওয়ায়ে পি৯০ প্রো এর মোট পয়েন্ট ১০৯। দ্বিতীয় আর তৃতীয় স্থানে ১০২ ও ৯৯ পয়েন্টস নিয়ে যথাক্রমে রয়েছে হুওয়ায়ে পি৯০ আর স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ প্লাস। এছাড়াও বর্তমানের অন্যতম জনপ্রিয় মোবাইল ব্র্যান্ড শাওমির এমআই মিক্স ২এস আছে ডিএক্স মার্কসের প্রথম দশের মধ্যে। শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলি ডিএক্সও মার্কস রেটিং সিস্টেমের মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার উপর নির্ভর করে।
কিন্তু অনেক সময় মানুষ অভিযোগ তোলে যে এখনকার মোবাইলে তোলা ছবিগুলো কম্পিউটারে এডিট করা মনে হয় কিংবা ফেক মনে হয়। স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গুলো রঙের বিভিন্ন ধরণের কোড এবং টাইপের উপর এখনো পরীক্ষা চালাচ্ছে। যেমন জেপিইজি টাইপ ফাইলের বদলে এইচইআইএফ ব্যবহার করলে অনেক পরিবর্তন আসে। তাই এই জিনিসগুলো সময়ের সাথে সাথে ঠিক হয়ে যাবে বলে আশা করা যায়। এখন পর্যন্ত ডিএক্স মার্কসের করা পরীক্ষিত কোন ফোন যদি কেনার ইচ্ছা কারো থাকে তবে অনায়াসে তা কিনে ফেলতে পারে। ডিএক্সও মার্কস ছাড়াও ফ্লিকার ক্যামেরা ফাইন্ডার, দ্যা ভারজ, ডিপি রিভিউ এসব সাইট থেকে ক্যামেরার গুণাবলী নিয়ে ধারণা পাওয়া যায়। 

Which smartphone has the best camera can be known by the lab review of DXOMark

Tech Dipanwita Sutradhar on 7 April 2018

Have you ever heard of DXOMark? DXOMark is one of the renowned organization and it has been experimenting various types of cameras. Since 2012, they have launched DXOMark Mobile Rating System for experimenting smartphone cameras.


At present, the most important communication device in the world is a mobile phone and it has reached the 41st year on April 3 of this year. There have been many changes to mobile phones over time. Once the usage of mobile phone was limited to just for speaking and texting. But nowadays it has changed a lot. 
Nonetheless with the development of technology now mobile phones are not just the means to talk or to text; more features are added. In particular, there are a lot of changes in the demand of people for mobile phones. After introducing an operating system like Android in mobile phones, many things have been changed. Now, most of the computer work can be done through this phone. Due to social network sites and dependency on that create the craving for clicking photos and send them to those sites. So when people now think about buying phones they prioritize the camera along with the processor. 
There was a time when taking photos meant there should be a camera with a relay. But it is possible to take pictures of high-quality photos with smartphones. In the last five years, the number of phones that can take photograph with dual lenses and a wide range increase. Besides, the tendency of people to take selfies is too much. Consequently, many mobile phone companies are very aware of the resolution of the front camera and related other issues.
All those who have the idea about smartphone cameras know about DXO Mark. DXO Mark has been experimenting various types of cameras and since 2012, they have launched DXO Mark Mobile Rating System for experimenting smartphone cameras. This rating is occupied by taking pictures of special charts, lab equipment, software in different environments. More than 1500 photos of fixed and moving objects are taken in inside and outside of the room, in different light conditions and environment. Then these pictures are analyzed in the lab. Engineers get final results based on photo exposures, autofocus, bokeh, and color- some special variables or changeable features. A team consists of engineers take about 10 days for the testing process. The test process contains a team of engineers, capturing photos and video both in the lab and outdoors, analyzing data, and providing perceptual estimations.
According to the DXO Mark, Huawei P90 Pro has the best phone camera so far. Huawei P90 Pro gets 109 points. Huawei P90 and Samsung Galaxy S9 Plus are in the second and third place with 102 and 99 points respectively. Likewise one of the most popular mobile brands of Xiaomi MI Mix 2 is on the top ten list of the DXO Mark. Leading mobile phone companies also rely on the evaluation process of DXO Marks rating system. 
But then again sometimes people complain that the photos taken on mobile phones seem to be edited on computers or they seem to be fake. Smartphone manufacturers are still experimenting with different types of color code and formats. For example, using JPEG instead of a HIEF type file, make a huge change in photo quality. So these things are expected to be fixed over time. Along with DXO Marks, Flickr camera finder, The Verge, DP reviews can be used as a mobile phone camera review site.