সোনালী পাটের আঁশ থেকে পলিথিন ব্যাগ আবিষ্কার করলো বাংলাদেশের এক বিজ্ঞানী

ব্যবসা বাণিজ্য দীপান্বিতা সূত্রধর || 10 April 2018

পাটের আঁশ থেকে পচনশীল পলিমার ব্যাগ তৈরির পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন বাংলাদেশের এক বিজ্ঞানী। পাট দিয়ে তৈরি কিন্তু দেখতে একদমই পলিথিনের ব্যাগের মত এই ব্যাগ। পরিবেশের কোন ক্ষতি না করে মাত্র ১২০ দিনের মধ্যে এই ব্যাগ মিশে যাবে মাটির সাথে।


সারা বিশ্বে প্রতি বছরে বিলিয়ন বিলিয়ন ব্যাগ ব্যবহৃত হয়। খাবার থেকে শুরু করে আমদানি রপ্তানিকৃত জিনিসপত্র- সব কিছু রক্ষার জন্য দরকার ব্যাগ বা র‍্যাপিং। প্রাকৃতিক ও কৃত্রিম সব ধরণের উপদান দিয়েই ব্যাগ বানানো হয়। প্লাস্টিক ও পলিসিন্থেটিক জাতীয় রাসায়নিক উপাদানের আগে প্রাকৃতিক তন্তু যেমন তুলা, পাট এসব দিয়ে ব্যাগ বা থলে তৈরি হত। কিন্তু সহজলভ্য, পানিরোধী আর কম দামি হওয়ায়ে পলিথিন বা প্লাস্টিকের ব্যাগের উৎপাদন আর ব্যবহার সময়ের সাথে সাথে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে পলিথিন বা প্লাস্টিক জাতীয় উপাদান পরিবেশের জন্য অনেক ক্ষতিকর কারণ এটি সহজে পচনশীল নয় আর সেজন্য এটি আমাদের ইকোসিস্টেমে খারাপ প্রভাব ফেলছে। বিশ্বের বেশির ভাগ দেশই প্লাস্টিক জাতীয় দ্রব্যের ব্যবহার কমানোর অনেক চেষ্টা করছে। আর আশার কথা এই যে এই সাহায্য তারা বাংলাদেশ থেকেই পেতে পারে।
কেননা বাংলাদেশে তৈরি হচ্ছে পাট দিয়ে তৈরি কিন্তু দেখতে একদমই পলিথিনের ব্যাগের মত ব্যাগ। পরিবেশের কোন ক্ষতি না করে মাত্র ১২০ দিনের মধ্যে এই ব্যাগ মিশে যাবে মাটির সাথে। পাটের আঁশ থেকে পচনশীল পলিমার ব্যাগ তৈরির পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন বাংলাদেশের এক বিজ্ঞানী আর তিনি হলেন বাংলাদেশ অ্যাটমিক এনার্জি কমিশনের ইন্সটিটিউট অফ রেডিয়েশন এন্ড পলিমার টেকনোলজি এর চিফ সায়েন্টিফিক অফিসার ড. মুবারক আহমদ খান। তিনি পাটের ফাইন সেলুলোজকে আলাদা করে এর সাথে সিক্রেট কিছু রাসায়নিক দ্রব্য এবং ক্রসলিঙ্কার মিশিয়ে একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ড্রায়ার মেশিনে বিক্রিয়া ঘটান। এই মূলনীতিতে তিনি তৈরি করেন পাটের তৈরি পলিব্যাগ, যার নাম তিনি দিয়েছেন “সোনালী ব্যাগ”।
ইতিমধ্যেই ঢাকার ডেমরার বাওয়ানী জুট মিলে পরীক্ষামূলক ভাবে “সোনালী ব্যাগ” তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। বিজেএমসি এর তত্ত্বাবধানে নির্মিত এই প্ল্যান্টটি সফলভাবে কাজ করতে পারলে সরকার বাণিজ্যিকভাবে এই ব্যাগ উৎপাদন শুরু করবে। পাটের তৈরি এই পলিমার ব্যাগ সাধারণ পলিব্যাগ থেকে দেড় গুণ বেশি মজবুত আর এর বাজারমূল্যও হবে সবার ধরা ছোঁয়ার মধ্যে।
বিজেএমসি কর্তৃপক্ষ থেকে জানা গেছে যে এখনো বাণিজ্যিকভাবে সোনালী ব্যাগ উৎপাদন শুরু হয়নি কিন্তু ইতোমধ্যে বিদেশের অনেক কোম্পানির কাছ থেকে এটি কেনার অনুরোধ এসেছে। দেশে-বিদেশে সাড়া জাগানো এই ব্যাগ ব্যবহারের জন্য দেশের মেগাশপগুলো আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আড়ং, স্বপ্ন, আগোরাসহ দেশীয় কয়েকটি চেইনশপ কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও সভা করেছে পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের একটি বাণিজ্যিক সংস্থা থেকে প্রতি মাসে ২৫ হাজার পাটের পলিব্যাগ সরবরাহের প্রস্তাব এসেছে। পলিথিনমুক্ত শহর নির্মাণের উদ্দেশ্যে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন সিটি কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ এই পলিব্যাগ কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।
সোনালি ব্যাগের মত আলোড়ন সৃষ্টিকারী আবিষ্কারের জন্য বাংলাদেশ একাডেমি অফ সায়েন্স ড. মুবারক আহমদ স্বর্ণপদকে ভূষিত করেছে। তিনি সারাবিশ্বের পাট বিজ্ঞানীদের মধ্যে “সাইটেশন” এর দিক থেকে র‍্যাংকিংয়ে ১ নাম্বারে আছেন। রেডিয়েশন এবং পলিমার কেমিস্ট্রির উপর পিএইচডি  সম্পন্ন ড. মুবারক বর্তমানে আইইউপ্যাকের একজন নির্বাচিত ফেলো। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন পার্টটাইম শিক্ষক হিসেবেও তিনি কর্মরত আছেন। তাঁর অন্যান্য আবিষ্কারের মধ্যে রয়েছে পাট দিয়ে তৈরি মজবুত ঢেউটিন (জুটিন), হেলমেট, রিং, স্ল্যাব, চেয়ার, টেবিল, টাইলস; টেক্সটাইলের বর্জ্য থেকে সার, গরুর হাড় থেকে উন্নতমানের ড্রেসিং ম্যাটেরিয়াল, চিংড়ির খোলস থেকে উদ্ভিদের বৃদ্ধির জন্য প্রাকৃতিক উপাদান, ইত্যাদি।
পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেছেন মালয়েশিয়া থেকে আনা যন্ত্রপাতি দিয়ে কাজ চলছে এবং এই প্রকল্প সফল হলেই ভবিষ্যতে প্রতিদিন ১ লাখ পিস পলিব্যাগ উৎপাদন করা হবে।

Jute made poly bag: A reviving story of jute fiber in Bangladesh

Business Dipanwita Sutradhar on 10 April 2018

One of the brightest scientists of Bangladesh named Dr. Mubarak Ahmad Khan has developed the method of making decomposing polymer bags. This invented polybag is made of jute fiber. Without making any damage to the environment, this bag will be decomposed in soil within only 120 days.


Millions of bags are consumed every day and hundreds of billions of bags per year worldwide. From food to imported goods - everything needs to be wrapped. Bags are made with all kinds of natural and synthetic ingredients. Before plastic and polymer chemicals, natural fibers such as cotton, jute, were used to make bags. However, the production and use of polythene made bags or plastic bags have increased over time due to its availability, water-logging components, and low cost. 
Then again, polyethylene or plastic components are very harmful to the environment because it is not easily deleterious and it has a bad effect on our ecosystems. Most of the countries in the world are trying a lot to reduce the use of plastic products. And hopefully, in this case, they may get help from Bangladesh. 
As a Bangladeshi scientist invented a polybag which is made of jute fiber. Without making any damage to the environment, this bag will be mixed in only 120 days with soil. One of the scientists of Bangladesh named Dr. Mubarak Ahmad Khan has developed the method of making decomposing polymer bags from jute fiber and he is the Chief Scientific Officer of Bangladesh Atomic Energy Commission Institute of Radiation and Polymer Technology. He separates fine cellulose of jute and mixes some chemicals and cross-linker in a machine at a certain temperature. By following this principle, he made the jute made polybag, which he named "Sonali Bag".
Already the manufacture of "Sonali Bag" has already been started at Demra's Bawani Jute Mill in Dhaka. If this plant is managed successfully by BJMC, the government will start commercially producing this bag. The jute-made polymer bag is 1.5 times stronger than the normal polybag, and its market value will also be reasonable. 
BJMC authorities have come to know that commercial production of golden bags has not started yet, but it has already received requests from many foreign companies to purchase it. The mega shops of the country have expressed interest to use this eco-friendly bag. The Ministry of Jute and Textiles has also held meetings with some of the local chain shops including Aarong, Swapno, and Agora.
Moreover, a proposal has been confirmed from United States based company which is willing to purchase 25,000 jute polybag per month. Australian City Council expressed interest in buying this polybag for the construction of a polythene-free city.
Dr. Mubarak Ahmad Khan has been awarded by Bangladesh Academy of Science for this great innovation. He is number 1 ranked in the world among thousands of jute scientists in terms of "citation". He has completed his Ph.D. in radiation and polymer chemistry. Dr. Mubarak is currently an elected Fellow of IUPAC. Additionally, he is also a part-time teacher of Dhaka University. Among his other inventions are- strong tin (jutin), helmet, ring, slab, chair, table, tiles made of jute; fertilizer from textile waste, high-quality dressing material from cow's bone, natural material for the growth of plants from prawn shell, etc.
Minister for Jute and Textile Mr. Mirza Azam said that work is being done with the machinery from Malaysia and if the project is successful, one lakh pieces of polybag will be produced per day in the future.