অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ডিফল্ট মেসেঞ্জার 'চ্যাট' আসছে উন্নত প্রযুক্তি নিয়ে

প্রযুক্তি ভাবনা দীপান্বিতা সূত্রধর || 24 April 2018

প্রায় ১০ বছর পর গুগল এখন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের মেসেজিং সার্ভিসে পরিবর্তন আনতে চলেছে। ‘চ্যাট’ নামের এই নতুন অ্যাপে গুগল ব্যবহার করবে বিশেষ প্রযুক্তি যার মাধ্যমে সহজেই টেক্সট এবং ভাল রেজুলেশনের ছবি ও অন্যান্য ডকুমেটন্টস পাঠানো যাবে সহজেই।


২০০৫ সালে গুগল প্রথম মোবাইল ফোনে টেক্সট মেসেজ বা ক্ষুদে বার্তা পাঠানোর জন্য গুগল টক বাজারে আনে। এরপর থেকে সারা বিশ্বের যোগাযোগ মাধ্যমে আসে আমূল পরিবর্তন। শুধু কথা না লিখিত ভাবে তথ্য আদান প্রদানের নতুন মাধ্যম খুব দ্রুতই ছড়িয়ে পরে সব জায়গায়। 
অ্যান্ড্রয়েড ফোন জনপ্রিয় হওয়ার পর শুধুমাত্র মেসেজিং বা ক্ষুদেবার্তার সাথে ছবি আর অন্যান্য ফাইল পাঠানোর জন্য অনেক মোবাইল অ্যাপ এসেছে বাজারে। ফেসবুক মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ, টেলিগ্রাম কিংবা ওয়্যার- এসবের সাথে তুলনা করলে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ডিফল্ট যে মেসেঞ্জার আছে তা তেমন ভালমানের নয়। যেখানে এইসব অ্যাপ দিয়ে ভাল রেজুলেশনের ছবি, অন্যান্য ফাইল আর মেসেজ করা যায় সেখানে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ডিফল্ট মেসেঞ্জার দিয়ে নির্দিষ্ট ১৬০ শব্দের বেশি মেসেজ করা যায় না- এমনকি বেশির ভাগ সময়ে ছবি বা ভিডিও এর রেজুলেশন খারাপ হয়ে যায়।
আমরা বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে যে এসএমএস আদান প্রদান করি তার শুরু ২০০৮ সাল থেকে। অ্যান্ড্রয়েড গুগলের সাহায্যে গুগল টকের সাথে এসএমএস সার্ভিস আনে। অন্যদিকে ২০০৯ সালে আইফোন পুশ নোটিফিকেশন ফিচার আনে যেখানে গুগল তখনও তাদের মেসেজিং সার্ভিসে কোন পরিবর্তন আনে নি। ২০১১ এর শুরু এর দিকে গুগল তাদের মেসেজিং সার্ভিস উন্নত করার জন্য গুগল প্লাসে হ্যাংআউট, হাডল এইগুলো আনে। এই বছরেরই শেষের দিকে অ্যাপেল তাদের ‘আই-মেসেজ’ আর অন্যদিকে বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক তাদের ‘ফেসবুক মেসেঞ্জার’ অ্যাপ বাজারে আনে।  ২০১৩ সালে গুগল তাদের হ্যাংআউটকে আবার নতুনভাবে আনার চেষ্টা করে কিন্তু মেসেঞ্জার অ্যাপ কখনই আধুনিক মেসেঞ্জিং অ্যাপগুলোর মত ছিলনা আর তার সাথে এটির নতুন ভার্সন না আসায় আস্তে আস্তে এর ব্যবহার আর জনপ্রিয়তাও কমে যায়।
এত গেল গুগলের মেসেজিং অ্যাপের মোটামুটি ইতিহাস, এরপর ২০১৬ সালে গুগল আবার নতুন করে শুরু করার জন্য অ্যান্ড্রয়েড এবং অ্যাপেলের আই ফোনে ভিডিও চ্যাটের জন্য ‘ডুও’ এবং  মেসেজিং অ্যাপ ‘অ্যালো’ আনে। কিন্তু ‘ডুও’ কিছুটা জনপ্রিয় হলেও, ‘অ্যালো’ এর নাম হয়ত অনেকেই জানে না।
প্রায় ১০ বছরের এত কিছুর পর গুগল এখন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের মেসেজিং সার্ভিসে পরিবর্তন আনতে চলেছে। ‘চ্যাট’ নামের এই নতুন অ্যাপে গুগল ব্যবহার করবে আরসিএস (রিচ কমিউনিকেশন সার্ভিস) প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তিতে যেসব অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আরসিএস ক্যারিয়ার থাকবে সেসব ফোনে ভাল রেজুলেশনের ছবি, টেক্সট মেসেজ সব যাবে আর যদি কোন ফোনে যদি আরসিএস না থাকে তাহলে যেমন আইফোনে সাধারণ টেক্সট হিসাবে প্রেরিত হবে। এই টেক্সট মেসেজ সার্ভিসের জন্য অতিরিক্ত কোন ফি দিতে হবে না। এখন মোবাইল কোম্পানিগুলো টেক্সটের জন্য যে ফি চার্জ করে এরকমই থাকবে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের প্রায় ৫৫ টি মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক প্রদানকারী এবং ১১ টি মোবাইল ফোন নির্মাণ কোম্পানিদের এই আরসিএস প্রযুক্তি আছে। তাই ‘চ্যাট’ চালু করতে গুগলের খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না।
আগামী কয়েক বছর বা মাসের মধ্যে গুগলের নতুন ডিফল্ট টেক্সট মেসেজ অ্যাপ আসবে তা এখনো নিশ্চিত না হলেও গুগল এর উপর কাজ করছে এবং খুব শীঘ্রই পরিবর্তন আসবে বলে আশা করা যাচ্ছে। 

Google's next big move to change android's default messaging app

Tech Dipanwita Sutradhar on 24 April 2018

After nearly 10 years of mess, Google is determined to use new technology to bring changes to their messaging services. Google will now use a technology for its upcoming default messaging app named ‘Chat’.


In 2005, Google first introduced Google Talk to send a text message or text message to the mobile phone. Since then, the communication medium of the whole world has changed drastically. Before this texting or messaging was not that common among people but when Google started to make application for Android phones- populaces take this very quickly.
The popularity of Android phones have been spread rapidly and texting or sending images, gifs, document files have become easy through an instant messaging app. Comparison with Facebook Messenger, Whatsapp or Wire - The default messenger for Android phones is not good enough. These apps can send good resolution photos, other files, and messages. On the other side, a message more than 160 words cannot be sent the android phone's default messenger - even most of the time the resolution of the images or videos become worse in quality.
The SMS that we currently use in Android phones has been launched since 2008. Android brings Google SMS service with Google Talk. On the other hand, in 2009, iPhone brought Push Notification feature where Google still did not make any changes to their messaging services.
At the beginning of 2011, Google brought hangouts, huddles to Google Plus for improving their messaging service. At the end of that year, Apple brought their 'iMessages' besides, the world's one of the largest social network sites- Facebook, fetched their 'Facebook messenger' app to the market. Then again, in 2013, Google tried their best to introduce their hangouts again with other features and improvements, but the messenger app was not like the other modern messaging apps. Hangout loses its market because there was lack of updates and as result its usage gradually reduced.
This is so far ephemeral history of Google's messaging app. In 2016, Google has launched 'Duo' for video chat and a messaging App 'Allo' for Android and Apple's iPhone for the restoration its messaging app market. Although 'Duo' is a bit popular, many people do not know the names of 'Allo'. After being Google- it still fails to give the best texting service to Android and iPhone users.
After nearly 10 years of mess, Google is determined to use new technology to bring changes to their messaging services. That's why Google will now use RCS (Rich Communication Service) technology for its upcoming default messaging app named ‘Chat’. All the Android phones will have RCS carrier and will be able to send and receive good resolution images, videos along with text messages. However, if there is no RCS carrier on a phone such as iPhone- then maybe the text will be sent as a general text message.
No additional fees will be required for this text message service. Furthermore, mobile companies will have the same fee charged for the text on a usual data plan. So far, the world's important about 55 mobile phone network operator and 11 original equipment manufacturers have these RCS technologies to themselves. Consequently, Google does not have to do much trouble to launch 'chat'.
When Google's new default text message app ‘Chat’ will be available is still not certain. It may take few more months but then again Google is working on it and is expected to change this soon.