আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চালু হচ্ছে ই-গেট এবং ই-পাসপোর্ট

ভ্রমণ বিবরণ জুআয়রা হোসেন || 2 January 2018

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালের মধ্যে 'ডিজিটাল বাংলাদেশ' তৈরির উদ্যোগ নিয়েছেন। বর্তমান সরকার ভিশন ২০২১ এর মাধ্যমে সকল ক্ষেত্রে উন্নয়নের উদ্যোগ নিয়েছে।


সরকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ই-পাসপোর্ট এবং ই-গেট চালু করবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জরুরি সেবার জন্য জাতীয় কল সেন্টারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় টোল ফ্রি জরুরি সাহায্য সেবা-৯৯৯ এর উদ্বোধন করেন যেটা নগরীর আব্দুল গনি রোডের ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) -এর ক্রাইম কমান্ড ও কন্ট্রোল সেন্টারে ইনস্টল করা হয়েছে। এই সাহায্যসেবা দেশের যেকোন প্রান্তের জন্য ২৪ ঘন্টা খোলা। মানুষ যেকোন সাহায্যের জন্য এই নাম্বারে ফোন দিতে পারবেন।

ই-পাসপোর্ট হচ্ছে বায়োমেট্রিক পাসপোর্ট। এতে রয়েছে একটি এমবেডেড ইলেকট্রনিক মাইক্রোপ্রসেসর চিপ যার মধ্যে রয়েছে বায়োমেট্রিক তথ্য যা পাসপোর্টধারীর পরিচয়ের সত্যতা প্রমাণে ব্যবহার করা যেতে পারে। ই-গেট হচ্ছে ইলেকট্রিক ইমিগ্রেশন গেট। ই-পাসপোর্ট নিরাপদ ভ্রমণ ও দ্রুত ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া নিশ্চিত করবে এবং ই-গেট ভ্রমণকারীদের যাত্রা শুরু এবং আগমন দ্রুত এবং ঝামেলামুক্ত করবে। এই সেবাগুলো খুবই সহায়ক হবে এবং বিমানবন্দরে নিরাপত্তার উদ্দেশ্যে সময়ও বাঁচাবে।

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় আইসিটি ক্ষেত্রে সার্বিক উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। ই-পাসপোর্ট এবং ই-গেট ডিজিটালাইজেশন এর লক্ষ্যে আরেকধাপ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং এটা দেশের উন্নয়নেও ভূমিকা রাখবে। দেশে প্রযুক্তি ব্যাপকভাবে বিস্তৃত করছে আইসিটি।

Government to launch E-gate and e-passport at all International Airports

Travel Zuaira Hossain on 2 January 2018

Prime Minister Sheikh Hasina has taken initiative to make ‘Digital Bangladesh’ within 2021. Government’s vision 2021 includes all sorts of development in all sectors.


The government will introduce e-gate (electronic gate) and e-passport (electronic passport) at international airports, said the Home Minister Asaduzzaman Khan Kamal at the launching ceremony of the national call center for emergency services.

Prime Minister’s Information and Communication Technology adviser Sajeeb Wazed Joy launched the call center for toll-free national emergency helpline-999, installed at the Crime Command and Control Centre of Dhaka Metropolitan Police (DMP) in city’s Abdul Gani Road. This is a 24 hour-open-nationwide helpline. People can call on this number anytime for any kind of help.

E-passport is basically a biometric passport. It has an embedded electronic microprocessor chip which contains biometric information that can be used to authenticate the identity of the passport holder. E-gate is electronic immigration gate. The e-passport would ensure safe and secure travel and faster immigration process while the e-gates would make departure and arrival of air travelers quicker and hassle-free. These services will also be very helpful and will also save time at the airport for security checking purposes.

Bangladesh government’s ICT Ministry is working hard to ensure the development of ICT sector. Introducing e-gate and e-passport will be another step towards the digitization and will also be helpful for the development of the country. ICT is also making technology widespread in the nation.